ধারা নং- ১৯ = সভা সমূহ :

এই পরিষদের বিভিন্ন প্রকারের সভা হতে পারে । যথা:-

(ক) সাধারণ পরিষদ সভা,

(খ) কার্যকরী পরিষদ সভা,

(গ) জরুরী সভা   

(ঘ) তলবী সভা এবং    

(ঙ) মুলতবী সভা।

(ক) সভা আহবানের সময় সাধারণ সভা কমপক্ষে ১৫ দিনের, কার্যকরী পরিষদের

সভা ৭ দিনের নোটিশে অনুষ্ঠিত হবে। জরুরী সাধারণ সভা ৭ দিনের মধ্যে এবং কার্যকরী পরিষদের জরুরী সভা ৩ দিনে নোটিশে অনুষ্ঠিত হবে। সাধারণ পরিষদের সভা বৎসরে কমপক্ষে একবার এবং কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা কমপক্ষে প্রতি দুই মাস অন্তর অনুষ্ঠিত হবে।

খ)  উল্লেখিত সভা আহবান করার  জন্য সাধারণ সম্পাদক, সভাপতির সাথে পরামর্শ করে সভার স্থান, তারিখ, সময় এবং আলোচ্য সূচী নির্ধারণপূর্বক নোটিশ বা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সকল সদস্যকে অবগত করে সভা আহবান করবেন।

গ) সভার কোরামঃ সকল প্রকার সভার ক্ষেত্রেই মোট সদস্যের দুই-তৃতীয়াংশ উপস্থিত থাকতে হবে এবং দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের উপস্থিতিতে সভার কোরাম হবে ! কোরাম’হীন সভার কোন সিদ্ধান্ত কার্যকরী হবে।

) তলবী সভা:    কোন সুনির্দিষ্ট আলাচ্যো সূচীর উপর ভিত্তি করে এক তৃতীয়াংশ

সাধারণ সদস্যগণ তলবী আহবান করার জন্য সাধারণ সম্পাদককে লিখিত ভাবে আবেদন জানাবেন। সাধরণ সম্পাদক যদি 30  দিনের মধ্যে এই সভা আহবান করতে ব্যর্থ হন তাহলে আবেদনকারীগণ পুনরায় এই সভা আহবান করার জন্য সভাপতি নিকট আবেদন জানালেন। সভাপতি, যদি ১৫ দিনের মধ্যে এই সভা আহবান না করেন তাহলে আবেদনকারীগণ  নিজেরাই সংস্থার কার্যালয়ে এই সভা আহবান করতে পারবেন। মোট সাধারণ সদস্যদের দুইততীয়াংশ সদস্যের উপস্থিতিতে গৃহীত সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে ।

(ঙ)    মূলতবী সভাঃ    সভা চলাকালীন, কোন বিশেষ কারনে যদি সভা চালনা করা সম্ভব না হয় বা কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণে জটিলতা দেখা দেয় তাহলে ঐ সভা মুলতবী ঘোষনা করা যাবে। মূলতবী সভার তারিখ ও সময় সভায় ঘোষনা করা হবে। মূলতবী সভা কোন কোরামের প্রয়োজনন হবে না এবং ঐ সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত বৈধ বলে বিবেচিত হবে। তবে কোরামের অভাবে সভা মূলতবী হলে পরবর্তী সভার জন্য নেটিশের মাধ্যমে সকল সদস্যকে অবহিত করতে হবে।